রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন!

রাজধানীতে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আজ বৃহস্পতবিার সন্ধা আনুমানিক ছয়টার দিকে একটি ভবনে আগুনের সূত্রপাত হয়। এই ঘটনায় রোগী ও স্বজনদরে মধ্যে আতঙ্ক ছড়য়িে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নয়িন্ত্রণে কাজ শুরু করনে। ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক আলী আহমেদ খান বলেন, হাসপাতালের তৃতীয় তলার স্টোররুম থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। ঘটনার পর পরই ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করেন। রাত সাড়ে আটটার দিকে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে।

এর আগে প্রত্যক্ষদর্শী ইসমাইল নামের এক ব্যক্তি হাসপাতালের একটি ভবন থেকে ধোঁয়া উড়তে দেখেন। তিনিই প্রথম ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। তাঁর খবরের পরপরই ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট সেখানে আসে। তবে শুরুতেই পানি পাচ্ছিল না ওই ইউনিট। পরে কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের পুকুর থেকে পানি তুলে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করে।

আগুন লাগার পরপরই রোগীদের হাসপাতালের ভবন থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। অনেক রোগীকেই হাসপাতালের সামনের সড়কে দেখা যায়। শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ছাত্র ও ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের সেখান থেকে রোগীদের সরিয়ে নিতে এবং আগুন নেভানোর কাজে সহায়তা করতে দেখা গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আগুন লাগার পর বেশ কিছু রোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে রোগীদের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

এ দিকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক আলাউদ্দিন বলেন, আমাদের এখানে রোগীদের অসুস্থতার ধরন অনুসারে সরাসরি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে ভর্তি করা হচ্ছে। জনবল বাড়ানো হয়েছে। আনসার সদস্যদেরও কাজে লাগানো হয়েছে ও যথাসাধ্য সেবা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ছাড়া অ্যাম্বুলেন্সগুলো সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আগুন লাগার খবর পেয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সেখানে গেছেন।

ফায়ার র্সাভসিরে মহাপরচিালক আলী আহমদে খান বলনে, অগ্নকিাণ্ডরে কারণ জানতে ফায়ার র্সাভসিরে একটি তদন্ত কমটিি গঠন করা হয়ছে।ে ফায়ার র্সাভসিরে উপপরচিালক অপারশেনকে প্রধান করে ওই কমটিি গঠতি হয়ছে।ে কমটিকিে পাঁচ র্কাযদবিসরে মধ্যে প্রতবিদেন জমা দতিে বলা হয়ছে।